শরীয়তের হুকুম হিজাব খোলবানা ঝর্না, কাঠগড়ায় দাড়িয়ে মামুনুল

হেফাজতে ইসলামের বিলুপ্ত কমিটির যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হকের কথিত দ্বিতীয় স্ত্রী জান্নাত আরা ঝর্ণা ধর্ষণ মামলায় সাক্ষ্য দিতে এগিয়ে এসেছেন। বুধবার দুপুর ১২টা ১৫ মিনিটে নারী ও শিশু নির্যাতন দমনের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেলা বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক নাজমুল হক শ্যামলের আদালতে ঝর্ণা সাক্ষ্য দেন।

সাক্ষ্য দেওয়ার সময় মুখের হিজাব খুলে ফেলতে বললে মামুনুল হক আসামির বেড়া থেকে চিৎকার করে বলেন, শরীয়তের হুকুম হিজাব খোলবানা ঝর্না। এতে ঝর্ণা একবার হিজাব খুলে বিচারকের কাছে মুখ দেখান এবং আবার হিজাব দিয়ে মুখ ঢেকে নেন। এ সময় রাষ্ট্রপক্ষে বাদী ও পাবলিক প্রসিকিউটর রকিবুজ্জামান রাকিব ছিলেন। এ সময় অ্যাডভোকেট মহসিন, নারায়ণগঞ্জ আইনজীবী সমিতির সভাপতি হাসান ফেরদৌস জুয়েলসহ কয়েকজন উপস্থিত ছিলেন। অপরদিকে আসামিপক্ষে ছিলেন সৈয়দ মো. জয়নুল আবেদীন মেসবাহসহ কয়েকজন।

নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের পাবলিক প্রসিকিউটর রকিবউদ্দিন জানান, ঝর্ণার স্বামীর ঘনিষ্ঠ বন্ধু মামুনুল হক। পরে স্বামী তাকে তালাক দিলে মামুনুল ঝর্ণাকে ঢাকার একটি বাসায় থাকার ব্যবস্থা করেন। মামুনুল ঝর্ণার সঙ্গে বিভিন্ন জায়গায় গিয়ে তার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ত।

বাদী বলেন, কোথায় কখন মামুনুল হক ঝর্ণাকে ধর্ষণ করেন। মামুনুল তাকে সোনারগাঁওয়ে রয়েল রিসোর্ট ছাড়াও বিভিন্ন স্থানে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে। সেসব ঘটনার কথা আদালতকে জানান ঝর্ণা। ঝর্ণার বক্তব্য (স্বাক্ষর) নেওয়ার পর অভিযুক্তের আইনজীবী তাকে জেরা করেন। তার প্রশ্নের উত্তরও দেন ঝর্ণা। তবে সাক্ষ্যপ্রমাণ শেষে মামুনুলকে আবারও কাশিমপুর কারাগারে নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: